ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

প্রচ্ছদ » মুক্তিযুদ্ধ » বিস্তারিত

৯ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭১

'ক্ষমতা হস্তান্তরে বিলম্ব ঘটানোর অপচেষ্টা হচ্ছে'

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ০৯ ১২:০০:০৪
'ক্ষমতা হস্তান্তরে বিলম্ব ঘটানোর অপচেষ্টা হচ্ছে'

উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ ডেস্ক : ভারতীয় বেতারে বলা হয়, লাহোরে দুইজন হাইজ্যাকার কর্তৃক ভারতীয় বিমান উড়িয়ে দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পর জনতা কতগুলো দোকান এবং গৃহে আগুন লাগিয়ে দেয়। একই ঘটনায় আহমেদাবাদে ১৬ ঘন্টাব্যাপী কারফিউ জারি করা হয়।

পূর্ব পাকিস্তান ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ এবং সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আলতাফ হোসেন সংবাদপত্রে এক বিবৃতির মাধ্যমে অবিলম্বে জাতীয় পরিষদ অধিবেশনের আহ্বানের জন্য প্রেসিডেন্টের প্রতি অনুরোধ জানান। বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, দেশে এক শ্রেণীর প্রতিক্রিয়াশীল ও চরম সাম্প্রদায়িক শক্তি লাহোরে ভারতীয় বিমান হাইজ্যাক এবং তা উড়িয়ে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সৃষ্টির মাধ্যমে জাতীয় পরিষদ অধিবেশন আহ্বান এবং জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরে বিলম্ব ঘটানোর চেষ্টা করছে।

জেনেভাস্ত লীগ অব রেডক্রস সোসিইটিজ-এর সেক্রেটারী জেনারেল হেনরিস বীয়ার তিনদিনের সফরে ঢাকায় আসেন। ঢাকায় অবস্থানকালে তিনি বিচারপতি বি.এ. সিদ্দিকী ও বিচারপতি নূরুল ইসলামের সাথে আলোচনা করেন। তিনি পূর্ব পাকিস্তান রেডক্রস সোসিইটির ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের সাথে এক আলোচনা বৈঠকে মিলিত হন। ঐ আলোচনায় পূর্ব পাকিস্তানের ঘূণিদুর্গত এলাকায় রেডক্রসের সাহায্য ব্যবস্থা এবং ভবিষ্যৎ উন্নয়ন কর্মসূচি পর্যালোচনা করা হয়।

প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খান মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী স্যার শিবসাগর রামগোলামকে পাকিস্তান ও ভারতের বর্তমান সম্পর্কের বিষয় অবহিত করেন এবং এই দুই প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সকল বিরোধ ও সমস্যার ন্যায়সঙ্গত সমাধান হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। দুই নেতা আন্তর্জাতিক উত্তেজনা হ্রাস ও দীর্ঘমেয়াদী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য জাতিসংঘ প্রস্তাবাবলী বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

দক্ষিণ ভিয়েতনামী স্থলবাহিনী এবং মার্কিন হেলিকপ্টারে দক্ষিণ ভিয়েতনামী প্যারাট্রুপাররা সকালে লাওসে প্রবেশ করে। দক্ষিণ ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট থিউ তাঁর বাহিনীকে লাওসে উত্তর ভিয়েতনামী ঘাঁটিগলো আক্রমণের নির্দেশ দেন। মার্কিন হাই কমান্ড থেকে বলা হয় যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ-হামলায় বিমান সমর্থন ও সাহায্য দেবে, তবে মার্কিন স্থল বাহিনীর কোন লোক বা কোন উপদেষ্টা এতে জড়িত হবেন না।

তথ্যসূত্র: মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর
(ওএস/এএস/ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৮)