ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

শেখ হাসিনার আমরণ জেলের হুঁশিয়ারি বিএনপির শরিকদের

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ১৪ ১৬:০৫:০৫
শেখ হাসিনার আমরণ জেলের হুঁশিয়ারি বিএনপির শরিকদের

স্টাফ রিপোর্টার : দুই কোটি ১০ লাখ টাকা দুর্নীতির অভিযোগে বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর কারাগারে থাকতে হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমরণ কারাগারে থাকতে হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন বিএনপির শরিক দলগুলোর নেতারা। তাদের দাবি, প্রধানমন্ত্রী হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি করেছেন। এ কারণে তারও বিচার হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের প্রতীকী অনশনে যোগ দিয়ে বিএনপির শরিক দলের নেতারা এ হুঁশিয়ারি দেন।

১৯৯১ সালে খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে এতিমদের নামে বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ২৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই করা দুদকের দুর্নীতির মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে খালেদা জিয়ার।

এই রায়কে সরকারের প্রতিহিংসা দাবি করে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মুক্তির দাবিতে ধারাবাহিকভাবে কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি। আর এসব কর্মসূচিতে জামায়াত ছাড়া শরিক দলগুলোর উপস্থিতিও আছে।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশনে বিএনপি নেতাদের পাশাপাশি বক্তব্য দেন শরিক দলের নেতারাও।

এ সময় লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, ‘পদ্মা সেতুসহ বিভিন্ন প্রকল্পে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। যদি খালেদা জিয়ার দুই কোটি টাকার মামলায় পাঁচ বছর সাজা হয় তাহলে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতির জন্য শেষ হাসিনাকে আমরণ সাজা খাটতে হবে।’

এনপিপির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশে করে বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে তোমার শান্তি হবে না। এর জন্য তোমার বিচার হবে। খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে এ দেশে তুমি কোনো নির্বাচন করতে পারবা না। নির্বাচন হবে সেটা খালেদা জিয়ার নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে।’

বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহীম বলেন, ‘জুলুমবাজ শেখ হাসিনার রেহাই নাই। আন্দোলন চলছে। এটা চালিয়ে যেতে হবে। আন্দোলনের মাধ্যমেই বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনব। এই আন্দোলনে কল্যাণ পার্টি আছে, থাকবে।’

বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া গণমানুষের নেত্রী। তাকে কোনো আদালতের কলমের খোঁচায় বন্দি করে রাখা যাবে না। তাকে মুক্তি দিতে হবে।’

‘রাজপথে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে এই আন্দোলনেই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ৫০টি আসনও পাবে না।’

(ওএস/এসপি/ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮)