ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

প্রচ্ছদ » দেশের খবর » বিস্তারিত

কাপাসিয়ায় পল্লী বিদ্যুতের চাঁদাবাজি, গ্রাহক হয়রানীর অভিযোগ

২০১৯ মে ১৬ ১২:৪৬:৫৬
কাপাসিয়ায় পল্লী বিদ্যুতের চাঁদাবাজি, গ্রাহক হয়রানীর অভিযোগ

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি : চলতি বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের পরও দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্মচারীরা স্থানীয় বাজারের দোকানদারদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও মিটার খুলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার সোহাগপুর বাজারে। এ নিয়ে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসির মাঝে দুই দিনব্যাপী ব্যাপক উত্তেজনার পর উর্ধ্বতণ মহলের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের সোহাগপুর বাজারে গত ১৩ মে সোমবার সকালে কাপাসিয়া পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীরা হানা দেয়। প্রথমে লাইনম্যান বোরহান ও ইলেক্ট্রিশিয়ান আল-আমীনের নেতৃত্বে বাজারের গ্রাহকদের নিকট ঢালাও ভাবে টাকা দাবী করে। এক পর্যায়ে গ্রাহক গোলাম মোস্তফা, বাদশা মিয়া ও শ্রী স্বপন কুমার দাসের চলতি মাসের পরিশোধিত বিলের কাগজ দেখানোর পরও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। তাদের প্রত্যেকের নিকট ২ হাজার টাকা করে ঘুষ দাবী করে। বিষয়টি নিয়ে ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন, বড়বেড় গ্রামের তোফায়েল আহমেদ মৃধা ও মোছলেম উদ্দিন মৃধা প্রতিবাদ করেন। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির স্থানীয় পরিচালক মোহর আলীও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। ইতিমধ্যে বাজার ব্যবসায়ী ও এলাকার লোকজন পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীদের ঘেরাও করে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে তারা পালিয়ে যায়।

এ খবর কাপাসিয়া পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিসে পৌঁছলে ডেপুটি জোনাল ম্যানেজার আবু মোঃ ইয়াহিয়া আকন্দ ক্ষুব্দ হয় এবং ১৪ মে মঙ্গলবার দুপুরে থানা পুলিশ ও এলাকার দালালদের সহযোগিতায় ওই বাজারে পুনরায় হানা দেয় এবং সন্ত্রাসী কায়দায় ভাংচুর করে। তারা গ্রাহকদের এলোপাথারী মারধর করে পুরো বাজারের সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং গ্রাহক নরসুন্দর স্বপন কুমার দাসকে পুলিশ আটক করে। পুলিশ ও দালাল সন্ত্রাসীদের ভায়ে বাজারের ব্যবসায়ীরা প্রাণ ভয়ে পালিয়ে যায়।

এ সময় গ্রাহক স্বপন কুমার দাস, বাদশা মিয়া, গোলাম মোস্তফা, তোফায়েল আহমেদ মৃধা ও মোছলেম উদ্দিন মৃধাসহ বেশ কিছু গ্রাহকের মিটার বিল পরিশোধ থাকা সত্বেও খুলে নিয়ে আসে। এ খবর ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসি ছড়িয়ে পড়লে শত শত নরনারী সোগাগপুর-কাপাসিয়া সড়কে অবস্থান নেন এবং পল্লী বিদ্যুতের অমানবিক আচরনের বিচার দাবী জানিয়ে বিছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগ পূণরায় সংযোগ দেয়ার দাবী জানান।

খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্, কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আবু মোঃ ইয়াহিয়া আকন্দ ও আওয়ামীলীগ দলীয় নেতৃবৃন্দ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হন। উপস্থিত সবাই ঘটনার বিস্তারিত শুনে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

উল্লেখ্য, পল্লী বিদ্যুতের দালাল নির্ভর সীমাহীন দূর্নীতি, নতুন সংযোগের নামে অতিরিক্ত টাকা দাবি করে দিনের পর দিন সাধারণ গ্রাহকদের হয়রানী করার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। তাছাড়া বিদ্যুৎ খুটি বসানোর নামে রাস্তার পাশের সাধারণ মানুষের কোটি কোটি টাকার গাছ কাটার পরও ঘন ঘন লোডসেডিংয়ে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে রোজার মাসে বিনা কারনে যখন তখন বিদ্যুৎ বন্ধ করা নিয়ে জনমনে ব্যাপক ক্ষোভ হয়েছে।

(এসকেডি/এসপি/মে ১৬, ২০১৯)