ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬

প্রচ্ছদ » খেলা » বিস্তারিত

‘ফিফার মতো হও’ আইসিসিকে হোল্ডিং

২০১৯ জুন ১৩ ১৪:২১:৩২
‘ফিফার মতো হও’ আইসিসিকে হোল্ডিং

স্পোর্টস ডেস্ক: এবারের বিশ্বকাপে আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচের আম্পায়ারিং নিয়ে। ক্যারিবীয়দের সে ম্যাচে মাশুল দিতে হয়েছে কিছু ভুল সিদ্ধান্তের কারণে। ধারাভাষ্যকার হিসেবে সে ম্যাচের আম্পায়ারিং নিয়ে কড়া সমালোচনা করেছিলেন মাইকেল হোল্ডিং, সে কারণে আইসিসির সতর্কবার্তা পেতে হয়েছে তাঁকে। তবে আইসিসিকে পাল্টাও দিয়েছেন সাবেক ক্যারিবীয় ফাস্ট বোলার।

ক্রিকেটে আম্পায়ারিংয়ের মান আগের চেয়ে অনেক কমেছে, এ নিয়ে যথেষ্ট আলোচনা আছে। আম্পায়ারিংয়ের দৈন্যদশা যেন আরও বেশি করে ফুটে উঠেছে এবারের বিশ্বকাপে। একের পর এক প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত দিয়ে চলেছেন আম্পায়াররা। আইসিসি কোথায় আম্পায়ারদের ভুল শুধরানোর চেষ্টা করবে, তা, না উল্টো বাজে আম্পায়ারিং নিয়ে কথা বলায় ধারাভাষ্যকারদের পেছনে লেগেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের বাজে আম্পায়ারিং নিয়ে সমালোচনা করায় সাবেক ক্যারিবীয় ফাস্ট বোলার মাইকেল হোল্ডিংকে নোটিশ ধরিয়ে দিয়েছে তারা। হোল্ডিং অবশ্য আইসিসিকেই পাল্টা এক হাত নিয়েছেন। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাকে ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফার মতো হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে দুই আম্পায়ার ক্রিস গ্যাফানি ও রুচিরা পাল্লিয়াগুরুগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একের পর এক বাজে সিদ্ধান্ত দিয়ে গেছেন। ম্যাচে পাঁচবার ডিআরএসে ভুল প্রমাণিত হয় আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত। মিচেল স্টার্কের স্পষ্ট নো বলেও গেইলকে আউট দিয়েছেন গ্যাফানি। ভুল সিদ্ধান্তগুলোর মাশুল সেদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দিয়েছে ভালোভাবেই।

সে দিন ম্যাচ চলার সময় ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন হোল্ডিং। সরাসরি আম্পায়ারদের ভুল সিদ্ধান্তগুলোর সমালোচনা করেন তিনি। এই ঘটনার পরেই নড়েচড়ে বসে আইসিসি। সব ধারাভাষ্যকারদের সতর্ক করে মেইল পাঠায় তারা। আইসিসির এমন কাজ একদমই ভালো লাগছে না হোল্ডিংয়ের। আইসিসির জায়গায় ফিফা হলে কখনই ম্যাচ অফিশিয়ালদের এমন অন্যায় সুবিধা দেওয়া হতো না বলে মনে করিয়ে দিয়েছেন হোল্ডিং, ‘সেদিন অস্ট্রেলিয়া-উইন্ডিজ ম্যাচের আম্পায়াররা যেভাবে একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত দিল, ফিফা হলে সেসব ম্যাচ অফিশিয়ালদের সরাসরি বাক্স-পেটরা গুছিয়ে বাসায় চলে যেতে বলা হতো। বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে আর একটা ম্যাচেরও দায়িত্ব দেওয়া হতো না তাদের। একজন সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে আমি মনে করি ক্রিকেটের মান আরও উন্নত হওয়া উচিত। আম্পায়াররা তাঁদের কাজ ঠিকমতো না করলেও তাঁদের আগলে রাখা কি আইসিসির দায়িত্ব নাকি?’
আইসিসির ক্রমাগত এমন খবরদারিতে বিরক্ত হোল্ডিং, ‘ধারাভাষ্যকারদের প্রতিদিন এভাবে চাপ প্রয়োগ করে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা, যাতে এসব ভুল নিয়ে আলোচনা করা না হয়।’

(ওএস/পিএস/১৩ জুন, ২০১৯)