ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

প্রচ্ছদ » মুক্তিযুদ্ধ » বিস্তারিত

৮ জুলাই, ১৯৭১

ডঃ হেনরি কিসিঞ্জার সন্ধ্যায় ইয়াহিয়া খানের সাথে একান্ত বৈঠকে মিলিত হন

২০১৯ জুলাই ০৭ ২৩:৫৫:১৮
ডঃ হেনরি কিসিঞ্জার সন্ধ্যায় ইয়াহিয়া খানের সাথে একান্ত বৈঠকে মিলিত হন

উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ ডেস্ক :সিলেটে ডাউকি ক্যাম্প থেকে মুক্তিযোদ্ধারা পাকবাহিনীর জৈন্তাপুর অবস্থানের ওপর আক্রমণ চালায়। এই অতর্কিত আক্রমণে বহু পাকসেনা নিহত হয়। অপরদিকে, বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর মুত্তালিব আহত হন।

সিলেটের মুক্তিযোদ্ধারা পাকবাহিনীর শাহবাজপুর রেলওয়ে স্টেশন ঘাঁটি আক্রমণ করে। এতে ৭ জন পাকসেনা হতাহত হয়।

সান্ধ্যভোজে ধানমন্ডির ‘সাংহাই’ চাইনিজ রেস্টুরেন্টে আগত পাকিস্তানি অফিসারদের ওপর মুক্তিবাহিনীর গেরিলা দল গ্রেনেড ছোঁড়ে। ফলে ২/৩ জন পাকিস্তানি অফিসার নিহত হয়।

মেজর গাফফার বেলুনিয়া থেকে ফিরে এসে কোনাবনে পুনরায় তার বাহিনীর সদরদপ্তর স্থাপন করেন।

পাকবাহিনীর সাথে দু‘দিনব্যাপী প্রচন্ড যুদ্ধের পর মুক্তিবাহিনী দিনাজপুর জেলার ঠাকুরগাঁও মহকুমা শহর দখল করে।

আকাশবানীর খবওে বলা হয়ঃ মুক্তিবাহিনী প্রচন্ড আক্রমণ চালিয়ে ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল জেলার তিনটি থানা হানাদার মুক্ত করে।
সিলেট, কুমিল্লা, ফেনী, কুষ্টিয়া, ময়মনসিংহ প্রভৃতি রণাঙ্গনে মুক্তিবাহিনীর তৎপরতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সর্বত্রই ইয়াহিয়া খানের দস্যুবাহিনী নাস্তানাবুদ হচ্ছে। বিপুল সংখ্যক পাকসেনা নিহত হয়েছে।

সকালে মুক্তিযোদ্ধারা পাকবাহিনীর নবীনগর অবস্থানের ওপর অতর্কিত আক্রমণ চালায়। এই আক্রমণে ৭ জন পাকসেনা ও ৫ জন দালাল নিহত হয়। অপরদিকে একজন মুক্তিযোদ্ধা আহত হয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারী ডঃ হেনরি কিসিঞ্জার সকালে নয়াদিল্লী থেকে রাওয়ালপিন্ডিতে আসেন। সন্ধ্যায় তিনি পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খানের সাথে একান্ত বৈঠকে মিলিত হন।

পাকিস্তান শান্তি ও জনকল্যান কাউন্সিলের সভাপতি মৌলভী ফরিদ আহমদ পাকিস্তান সরকারের বিশেষ দূত হিসেবে মিসর ও সৌদী আরব সফর শেষে ঢাকায় প্রত্যাবর্তন করে এক বিবৃতিতে বলেন, তিনি দেশের বর্তমান গুরুতর সঙ্কটের সমাধান না হওয়া পর্যন্ত রাজনীতি থেকে অবসর গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে ঘোষণা করা হয়ঃ মার্কিন সরকারের বিধিনিষেধ আরোপ সত্ত্বেও মার্কিন সামরিক সাজসরঞ্জাম পাকিস্তানে প্রেরিত হবে। এর মুল্য এক থেকে দেড় কোটি ডলার।

সাবেক এম.এন.এ. এবং পাকিস্তান জমিয়তে ওলামায়ে ইসলাম ও নেজামে ইসলামের ওয়াকিং প্রেসিডেন্ট আতাহার আলী জনগণকে ঐক্যবদ্ধভাবে পাকিস্তানের ঐক্য ও সংহতি রক্ষা করার জন্য আরো উদ্যমের সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান।

তথ্যসূত্র : মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর।
(ওএস/এএস/জুলাই ০৮, ২০১৯)