ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

প্রচ্ছদ » বিনোদন » বিস্তারিত

হুমায়ূন আহমেদের প্রয়াণ দিবস আজ

২০১৯ জুলাই ১৯ ১৫:২৩:০৫
হুমায়ূন আহমেদের প্রয়াণ দিবস আজ

স্টাফ রিপোর্টার :জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১২ সালের এই দিনে যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন থেকে তিনি মারা যান। হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পরিবারের পক্ষ থেকে গাজীপুরের নুহাশপল্লীতে রয়েছে নানা আয়োজন। সকাল থেকে থাকছে কোরআন তেলোয়াত ও দোয়া মাহফিল।

এছাড়াও সারাদিনে ভক্ত ও অনুরাগীরা নুহাশপল্লীতে নন্দিত এই সাহিত্যক শ্রদ্ধা জানাবেন। ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনায় জন্মগ্রহণ করেন হুমায়ূন আহমেদ। ১৯৭২ সালে প্রকাশিত নন্দিত নরকে উপন্যাসের মধ্য দিয়ে শুরু হয় হুমায়ূন আহমেদের সাহিত্যজীবন।

৬৩ বছরের জীবনে লেখা বইয়ের সংখ্যা তিন শতাধিক। একইসঙ্গে জনপ্রিয় নাটক কোথাও কেউ নেই, আয়োময়, আজ রবিবারের কাহিনীকার ও নির্মাতা তিনি। পরিচালনা করেছেন আটটি চলচ্চিত্র। চার বার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

উল্লেখ্য, হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তার ডাক নাম কাজল। বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ও মা আয়েশা ফয়েজের প্রথম সন্তান তিনি। বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা আর মা ছিলেন গৃহিণী। তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়ো। কথাসাহিত্যিক জাফর ইকবাল তার ছোটো ভাই। সবার ছোটো ভাই আহসান হাবীব নামকরা কার্টুনিস্ট ও রম্যলেখক।

তার পরিচালিত চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে আগুনের পরশমণি, শ্যামল ছায়া, শ্রাবণ মেঘের দিন, দুই দুয়ারী, চন্দ্রকথা ও নয় নম্বর বিপদসংকেত, ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ প্রভৃতি।

বাংলা সাহিত্যে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পদক ‘একুশে পদক’ লাভ করেন। এছাড়া তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার (১৯৮১), হুমায়ুন কাদির স্মৃতি পুরস্কার (১৯৯০), লেখক শিবির পুরস্কার (১৯৭৩), জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (১৯৯৩ ও ১৯৯৪), বাচসাস পুরস্কার (১৯৮৮) লাভ করেন।

(ওএস/এসপি/জুলাই ১৯, ২০১৯)