ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬

প্রচ্ছদ » পাশে দাঁড়াই » বিস্তারিত

বাঁচতে চায় ত্রিশালের দুই যুবক  

২০১৯ জুলাই ২৫ ১৫:৪৭:৫৭
বাঁচতে চায় ত্রিশালের দুই যুবক  

ত্রিশাল প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার দুই যুবক জহিরুল ইসলাম ও মোঃ মাসুম চিকিৎসাধীন জীবনের সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ত্রিশালের এই দুই যুবক সকলের ভালোবাসা ও সহযোগিতা নিয়ে বাঁচতে চায়।

ত্রিশাল সরকারি নজরুল কলেজের মেধাবী ছাত্র জহিরুল ইসলামের একটি কিডনি পুরোপুরি ও অপরটির ৯৫ শতাংশই নিস্তেজ হয়ে গেছে।

চিকিৎসকরা জানান, তার দ্রুত কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য মোটা অংকের টাকার প্রয়োজন। জহিরুল ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জহিরুলের বাবা জালাল উদ্দিন ত্রিশাল পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের চরপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি জানান, পুত্র জহিরুলকে বাঁচাতে তার পক্ষে এত টাকা সংগ্রহ করা কোন ভাবেই সম্ভব না ।

কিডনি প্রতিস্থাপন ও চিকিৎসার জন্য অসহায় বাবা সমাজের বৃত্তবানদের সহয়তা কামনা করেছেন।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা- বিকাশ ০১৩০৬ ৩৪১৮২৪।

অপরদিকে, বছর দুই আগে ময়মনসিংহের ত্রিশালের ধানীখোলা ইউনিয়নের দক্ষিন ভাটিপাড়া গ্রামের মো. মাসুমের কোমরের নিচের দিকে হাড়ের ভেতর টিউমার ধরা পড়ে। পরে ওই টিউমারের অস্ত্রপ্রচার করা হয় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা মাসুমকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানে দুই মাস ১৮ দিন চিকিৎসা দেওয়ার পর চিকিৎসকরা স্বজনদের জানান তার অবস্থা আশংকাজনক। সেই সঙ্গে পরামর্শ দেওয়া হয় ভারতের বেলুর সিএমসিতে ভর্তি করে উন্নত চিকিৎসা নেয়ার জন্য। তাতে প্রায় ১০ লাখ টাকা ব্যয় হবে বলে জানিয়েছেন পঙ্গু হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

মাসুমের পিতা নূরুল ইসলাম স্থানীয় মসজিদের ইমাম ছিলেন। তিনিও বার্ধক্যজনিত কারনে শষ্যাশায়ী। নূরুল ইসলামের নিজস্ব কোন জমিজমা নেই। তার পরিবারের পক্ষে চিকিৎসার ওই ব্যয়ভার বহন করা কোন ভাবেই সম্ভবপর নয়। তাই সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেন মাসুম। মাসুমের ব্যক্তিগত বিকাশ নাম্বার -০১৭৯৯-২৩০৩৬৩।

(এস/এসপি/জুলাই ২৫, ২০১৯)