ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

প্রচ্ছদ » দেশের খবর » বিস্তারিত

নেই সিসি ক্যামেরা, প্রায়ই হচ্ছে চুরি 

লক্ষ্মীপাশা সোনালী ব্যাংক চত্ত্বর থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্ত

২০১৯ সেপ্টেম্বর ১১ ১৮:২১:০১
লক্ষ্মীপাশা সোনালী ব্যাংক চত্ত্বর থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্ত

রূপক মুখার্জি, নড়াইল : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা সদরের লক্ষ্মীপাশা সোনালী ব্যাংক ট্রেজারি শাখার চত্বর থেকে অভিনব কায়দায় টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে এক দুর্বৃত্ত। গত সোমবার দুপুরে লোহাগড়া কলেজপাড়ার বাসিন্দা সাইফুর রহমান মোল্লার ৩৩ হাজার ৫০০ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এদিকে সোনালী ব্যাংকের গুরুত্বপূর্ণ ওই শাখায় কোনো সিসি ক্যামেরা না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন। সিসি ক্যামেরা না থাকায় ব্যাংকের এ শাখা থেকে প্রায়শই গ্রাহকদের টাকা খোয়া যাচ্ছে।

ক্ষতিগ্রস্থ সাইফুর রহমান জানান, ওই ব্যাংক থেকে পেনশনের ৩৩ হাজার ৫০০ টাকা তুলে সদাই করা ব্যাগে টাকাগুলো রেখে ব্যাংকের দোতলা থেকে নিচেয় নামি। ব্যাংক থেতে বের হয়ে মোটরসাইকেলের বামপাশের হুকে ব্যাগটি রেখে মোটরসাইকেল চালানো শুরু করি। একটু সামনে গিয়েই দেখি টাকার ব্যাগ নেই। এ ঘটনায় ওই রাতেই লোহাগড়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, লোহাগড়া থানায় লক্ষ্মীপাশা চৌরাস্তার সিসি ক্যামেরার ভিডিওতে দেখা যায়, টাকার ব্যাগটি মোটরসাইকেলের হুকে বেধে চালানো শুরু করলে এক দুর্র্বৃত্ত ছোঁ মেরে ব্যাগটি নিয়ে দ্রুত পায়ে চলে যায়। ওই দুর্র্বৃত্তের আনুমানিক বয়স ৪৫ বছর। কালো চেহারার ওই ব্যাক্তির পরনে ছিল সাদা শার্ট ও গ্যাবাডিনের খাকি রঙের প্যান্ট এবং পায়ে স্যান্ডেলস্যু।

স্থানীয় লোকজন জানান, এর আগেও ওই শাখা থেকে টাকা তুলে বের হওয়ার পর নানা কৌশলে অনেকের টাকা দুর্বৃত্তরা নিয়ে গেছে। ব্যাংকে সিসি ক্যামেরা থাকলে দুর্বৃত্তদের ধরা সম্ভব হতো। এমন গুরুত্বপূর্ণ শাখায় সিসি ক্যামেরা না থাকায় বারবারই ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকাবাসী। এ ছাড়া অসহায় ও দরিদ্রদের বিভিন্ন ভাতা উত্তোলনের সময় ওই ব্যাংকের কর্মকর্তারা নানা অজুহাতে ভাতাভোগীদের হয়রানি করে থাকেন বলে ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে।

ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ব্যাংক থেকে টাকা তুলে ব্যাংকের বাইরে যাওয়ার পর দুর্বৃত্তরা নানা কৌশলে টাকা ছিনিয়ে নেয়। সিসি ক্যামেরা জন্য দুই মাস অন্তর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হচ্ছে, কিন্তু বরাদ্দ হচ্ছে না।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো, মোকাররম হোসেন বলেন, ‘চুরি হওয়া ওই টাকা উদ্ধার ও দুর্বৃত্তদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

(আরএম/এসপি/সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯)