ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

‘জামিন দিতে বললেও হস্তক্ষেপ, না দিতে বললেও হস্তক্ষেপ’

২০১৯ অক্টোবর ০২ ১৫:১৯:১০
‘জামিন দিতে বললেও হস্তক্ষেপ, না দিতে বললেও হস্তক্ষেপ’

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়টি আদালতের বিষয় উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বেগম জিয়ার সাথে আমাদের কোনো শত্রুতা নেই।’

মঙ্গলবার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সাংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের এ কথা বলেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার পর গতকাল বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, আজ জামিন পেলে কালই বিদেশ যাবেন বেগম জিয়া।

সরকার জামিনের বিষয়ে সহযোগিতা করবে কি না- জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যে সংসদ সদস্যের কথা বলেছেন, তিনি আমার সঙ্গে দেখা করেও এ কথা বলেছেন কয়েকদিন আগে। বলেছেন বেগম জিয়াকে ঘিরে তাদের অভিপ্রায়ের কথা। জামিন পেলে তিনি বিদেশ যাবেন। আমাদের মুখ দিয়ে এটা বলিনি। তারাই যখন বলছেন, তাই আমি নিঃসংকোচে বলতে পারি- তিনি আমাকেও বলেছেন বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে বলার জন্য। সেটা আমি জানিয়েছি।’

‘তিনি (বেগম জিয়া) জামিন পাবেন কি না, সেটা আদালতের বিষয়। সরকার আদালতকে কীভাবে বলবে যে জামিন দিয়ে দেবেন। এটা কী বলা উচিত? তবে বিচারব্যবস্থার প্রতি এটা অসম্মান নয় কি? তাহলে তো সরকারের হস্তক্ষেপই হয়ে গেল।’

‘তিনি যদি জামিন চান এবং চিকিৎকরা যদি মনে করেন তার বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করা দরকার। সেটা বলতে পারেন। চিকিৎসকদের পরামর্শ থাকলে জানাতে পারেন।’

সরকার সহায়তা করবে কি না- এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘জামিনের বিষয়ে সরকার কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে। জামিন দিতে বললেও হস্তক্ষেপ, না দিতে বললেও হস্তক্ষেপ। কাজেই বিষয়টি আদালতের ওপর ছেড়ে দিন।’

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে, সরকারের বিরোধিতার কারণে বেগম জিয়ার জামিন হচ্ছে না। তারা জামিন চাইলে সরকার সেই আপিলের বিরোধিতা করে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে কাদের বলেন, ‘যখন জামিন চাইবেন তখন পক্ষ-বিপক্ষ আলোচনা তো হবেই। জামিনটা তারা কেন চান, জামিন চাওয়ার মতো মামলায় সেই সুবিধা আছে কি না সেটাও তো দেখতে হবে। জামিন চাইতে দেবে কি না, সেটা আদালতের বিষয়। সরকারের এখানে কিছু করার নেই।’

সরকার অন্য কোনোভাবে চায় কি না যে বেগম জিয়া বিদেশে চিকিৎসা নিক- এ বিষয়ে কাদের বলেন, ‘বেগম জিয়ার সাথে আমাদের কোনো শত্রুতা নেই। ইনি যদি জামিন পান, চিকিৎসকরা তার বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে রিপোর্ট দেন, তখনকার ব্যাপার তখন দেখা যাবে। প্রত্যেকটি ব্যাপারই যদির মধ্যে আটকে যাচ্ছে।’

আপনি বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন কি না, জানালে তার মনোভাব কী- জানতে চাইলে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘আমি শ্রেফ জানিয়েছি, তিনি বলেছেন বিষয়টি আদালতের, আদালত জামিন না দিলে আমি কীভাবে দেখব।’

‘আমি তো মনে করি, ইদানীং তারা যে বক্তব্য দিচ্ছেন, তাদের বাইরের বক্তব্যের সুর হচ্ছে তারা বেগম জিয়াকে আন্দোলন করে বের করবে। আমি তো মনে করি, তারা আন্দোলন করুক। একজন নেতা জেলে আছে, তার জন্য তার দল যদি একটা ঝোড়ো পরিস্থিতি, একটা বিস্ফোরণ সৃষ্টি করতে পারে তখন সেই অবস্থায় যদি খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে পারেন। সেটা তারা করে না কেন?’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, ‘তারা তো আন্দোলনটা মুখে বলছেন, বাস্তবে তো আন্দোলনের কোনো চিত্রই আমরা দেখতে পারছি না। কোনো আভাস ইঙ্গিতও পাচ্ছি না। আন্দোলনের ঢেউ দূরে থাক, রিপল বা ছোট ঢেউও তো দেখি না। আন্দোলন করে তারা বের করুক বেগম জিয়াকে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘তারা বড় দল, তারা তো বলছেন সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। কাজেই সরকারকে হটাতো তো সহজ তাদের ভাষায়। আন্দোলন করে সরকারকে হটাক, তাহলে বেগম জিয়া বের হবেন। ক্ষমতার অভিলাশও পূর্ণ হতে পারে, অসুবিধা কী? আমি তো সাজেস্ট করব আন্দোলনকে? একজন বিদেশে আছেন, বিদেশে বসে কী আন্দোলন করা যায়? বিদেশে বসে আন্দোলনের ডাক দিলে কেউ সাড়া দেবে না। আর দেশে আন্দোলনের মতো কোনো বস্তুগত পরিস্থিতি নেই।’

(ওএস/এসপি/অক্টোবর ০২, ২০১৯)