ঢাকা, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

প্রচ্ছদ » বিনোদন » বিস্তারিত

দ্যুতি ছড়াচ্ছেন শর্মি

২০১৯ অক্টোবর ৩১ ১৫:৪৪:৩১
দ্যুতি ছড়াচ্ছেন শর্মি

বিনোদন প্রতিবেদক : প্রখ্যাত চিত্রকর এস এম সুলতানের স্মৃতিধন্য নড়াইলের মেয়ে শর্মি ইসলাম। একাধারে একজন নৃত্যশিল্পী, অভিনেত্রী ও মডেল। দেশীয় টিভি মিডিয়ার উঠতি অভিনেত্রী মডেল। সুন্দরী – সুদর্শনা, শিক্ষিতা আর স্মার্ট মেয়ে শর্মি। শোবিজে এসেছেন মাত্র বছর দেড়েক হলো। তাতেই নির্মাতা আর দর্শকদের নজরে এসেছেন সুতনুকা এই মেয়েটি।

অভিনয় করছেন নাটক, টেলিফিল্ম, শর্ট ফিল্ম আর মডেলিং করছেন বিভিন্ন শিল্পীর মিউজিক ভিডিওতে।সম্প্রতি শর্মি জি কুরিয়ার সার্ভিস এর একটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেন। টনক মাসুদ পরিচালিত বিজ্ঞাপনটি সময়, ৭১, নিউজ ২৪, এটিএন বাংলা ও বাংলা ভিশনে প্রচার হচ্ছে।

তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ার সময় তার বাবা এ আর এম নজরুল ইসলাম আলম তাকে নড়াইলের লোহাগড়ার স্থানীয় নাচের একাডেমিতে ভর্তি করিয়ে দেন। এর পর যুক্ত হন মঞ্চ নাটকের সাথে। ওখানকার গণনাট্য সংস্থার হয়ে শর্মি ইসলাম বেশ কিছু মঞ্চ নাটকে অভিনয় করেছেন। এগুলোর মধ্যে কালপুরুষ নামের একটি নাটকে অসংখ্য শো করেছেন তিনি। অভিনয় আর নাচে ওই সময়ে খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে অসংখ্য বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বলে জানান শর্মি।

মুক্তিযোদ্ধা বাবা সরকারী চাকুরীজীবী হওয়ায় বদলি সূত্রে ২০০৬ সালে তার পুরো পরিবার ঢাকায় চলে আসে। তখন কিশোরী বয়েসে উদীচীর সাথে যুক্ত হন আশৈশব অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখা শর্মি। প্রগতিশীল আর সংস্কৃতিমনা বাবার ঐকান্তিক আগ্রহ আর ইচ্ছায় পড়াশোনার পাশাপাশি চলতে থাকে শর্মির উদীচীর হয়ে অভিনয় আর নাচের চর্চা। অনার্স কমপ্লিট হওয়ার পর শর্মি তার স্বপ্ন পূরণে উদ্যোগী হন। শুরু করেন টিভি মিডিয়ায় অভিনয়ের পথচলা।

বন্ধুবৎসল আর সদাহাস্য তরুণী শর্মি বলেন, আমি আরো আগেই নিজের স্বপ্নের জগতে আত্মপ্রকাশ করতে পারতাম। কিন্তু ওই সময়টাতে আমার কাছে ফার্স্ট প্রায়োরিটি ছিল আমার একাডেমিক ক্যারিয়ার। পরিবার থেকেও বলা হচ্ছিল অন্তত অনার্স কমপ্লিট করে যেন মিডিয়ায় আসি। নিজের প্রথম কাজ কোনটি জানতে চাইলে শর্মি জানান, লিটু করিম পরিচালিত শর্ট ফিল্ম অন্তরালে বিষাদ। এরপর তিনি নিরুপায়, কলংকিত বউ, নেশার জন্যে, বোবা বোন সহ প্রায় এক ডজন শর্ট ফিল্ম এ অভিনয় করে নিজের প্রতিভার দ্যুতি ছড়ান। এরপর শিল্পী বাধন রাজের গাওয়া লোভী মেয়ে গানে মডেল হয়ে শর্মি ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়ে উঠেন। তিনি বলেন, লোভী মেয়ে মিউজিক ভিডিওটির কল্যাণে আমি দ্রুত পরিচিতি পেতে সক্ষম হই। চলার পথে যারা আমাকে চিনে ফেলেন, তারা তাই আমাকে ভালোবেসে লোভী মেয়ে বলে ডাকেন।

শর্ট ফিল্ম এর মিউজিক ভিডিওতে নিজের মেধার প্রয়োগ ঘটিয়ে শর্মি অভিনয় মেধার সংযোজন ঘটান সমুদ্রের নোনাজল এবং লুলু পাগলা নামের দুটি ধারাবাহিক নাটকে। দুটি ধারাবাহিকে তার চরিত্র নায়িকার।

কথায় কথায় মিষ্টি হাসির বিনয়ী মেয়ে শর্মি ইসলাম জানান, তিনি একজন জনপ্রিয় অভিনয় তারকা হওয়ার যে স্বপ্ন নিয়ে মিডিয়ায় এসেছেন, সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য সম্প্রতি তিনি একটি কর্পোরেট কোম্পানির চাকুরী পর্যন্ত ছেড়ে দিয়েছেন। কেননা চাকুরীর ব্যস্ততার কারণে অভিনয় আর মডেলিংয়ের কাজে পর্যাপ্ত সময় দিতে পারছেন না। তবে এতে কোন আফসোস নেই তারকা হওয়ার স্বপ্নে বিভোর এই তরুণীর।

স্বল্প দিনের শোবিজ ক্যারিয়ারে ইতিমধ্যে চলচ্চিত্রেও অভিনয়ের প্রস্তাব এসেছে তার কাছে। শর্মি অবশ্যই বিনোদনের বৃহৎ মাধ্যমে কাজ করতে আগ্রহী। তবে আপাতত না। এখন তিনি টিভি মিডিয়ায় কাজ করে নিজেকে চলচ্চিত্রের জন্যে আরো দক্ষ ও উপযোগী করে নিতে চান। এরপর নিজেকে চলচ্চিত্রের জন্যে যোগ্য মনে করলে অবশ্যই তিনি ওই মাধ্যমে অভিনয় করবেন।

সব শেষে তিনি জানান, শোবিজ মিডিয়ায় ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্রে তার বাবার পাশাপাশি মা শাহনাজ ইসলাম ইভা এবং বড় বোন শারমিন ইসলাম সেতুও প্রচুর উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন। আর তাই মা বাবা আর বোনের উৎসাহ অনুপ্রেরণা– আশীর্বাদ মাথায় নিয়ে অভিনয় ও মডেলিংয়ে নিজেকে ক্রমশ ব্যস্ত করে তুলছেন দেশীয় শোবিজ মিডিয়ার নতুন প্রজন্মের উঠতি তারকা শর্মি ইসলাম।

(এম/এসপি/অক্টোবর ৩১, ২০১৯)