ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

প্রচ্ছদ » শিল্প-সাহিত্য » বিস্তারিত

করোনা কালের কঞ্জুস

২০২০ জুন ২৫ ২২:০০:২১
করোনা কালের কঞ্জুস







রাশেদুল ইসলাম রাশেদ

মৌসুমি ফলের পসড়া সাজিয়ে বসেছে দোকানী
আম,জাম,লিচু আর কাঁঠালের হয়েছে বেশ আমদানি।
তরমুজের হৃদয় খুঁড়ে ক্রেতা খুঁজে ফেরে রক্তলাল,
দেখে না তো কেউ, আমার চক্ষু যে তার চেয়েও লাল।
কিনতে না পারার বেদনাটা আমার হয়েছে বিষবান।
হৃদয়রক্ত,অশ্রু জল হয়ে নিরবে বের হয় নিশিকাল।
দোকানীর কেটে রাখা তেচোখা তালের শাস
ঢ্যাব ঢ্যাব করে চেয়ে, আমারেই যেন করে পরিহাস।
পথ দিয়ে হেঁটে হেঁটে সস্তার বাজার যদি মেলে,
নিয়ে নিই পোয়াটেক কাঁচা লঙ্কা,আধা শের করে
ঝিঙে, পটল,বেগুন আর বড় জোর এক শের আলু।
মাছ, মাংস বেশি খাই না, স্বাস্থের পক্ষে তা ভালো না-
এই মোর সান্ত্বনা।।

অতি গরম ছাড়া ফ্যানটাও চালায় না,
মৃদু আলোতেও বিজলি বাতি জ্বালায় না।
ফোনে বেশি টাকা ভরি না।
পি. সি টাও মেরামতের অভাবে চলে না।
চা, পান, সিগারেট আমি খাই না।
নিরবে নিরানন্দে চলে গেল একটি বৈশাখ,
লাল গোলাপহীন ১৪ ফেব্রুয়ারি,
কেকহীন প্রিয়ার জন্মতিথি।
চলে গেল বিবাহ বার্ষিকী,নতুন কাপড়হীন ঈদুল ফিতর,
উপহারহীন মা দিবস,বাবা দিবস আরো কতকি।।
গোলাপ কাটায় ক্ষত-বিক্ষত হয়েছি বার বার।
কেকের গায়ে লেখা প্রতিটি বর্ণ, বর্শাফলা হয়ে -
ছিন্নভিন্ন করেছে মোর অঙ্গ ।

এমনি করে কত দিবস আসে- যায়
দুর্দশা দিবসটাই শুধু রয়ে যায়।।
রমনী রম্য করে বলে আমি নাকি হয়েছি বেশ কঞ্জুস।
আঁখি জলে ভাসি, আর মনে মনে হাসি
আমার নেই তো আগের মত সেই জৌলুস।
আমি যে করোনা কালের এক নব্য কঞ্জুস।।