ঢাকা, রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

পাটকল শ্রমিকদের নিয়ে রিজভীর উদ্বেগ

২০২০ জুন ২৯ ১৪:৪৪:৩৫
পাটকল শ্রমিকদের নিয়ে রিজভীর উদ্বেগ

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারের ভ্রান্তনীতি ও অব্যবস্থাপনায় দেশের ঐতিহ্যবাহী পাটশিল্প আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এমন মন্তব্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ বলেছেন, ২৫টি রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধ করার গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যার ফলে স্থায়ী-অস্থায়ী মিলে প্রায় ৫৫-৬০ হাজার শ্রমিক কাজ হারাবেন। তাদের পরিবার এবং ৪০ লাখ পাটচাষি ও তাদের পরিবার, পাট ব্যবসায়ী মিলে মোট প্রায় সাড়ে ৩ কোটি মানুষ চরম বিপাকে পড়বেন।

সোমবার (২৯ জুন) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) অধীন পাটকলগুলো বন্ধের পরিকল্পনা করেছে সরকার। গতকাল বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) কার্যক্রম পর্যালোচনা বিষয়ে ব্রিফিংয়ে বলেন, বিজেএমসির ক্রমবর্ধমান লোকসানের কারণে শ্রমিকদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেক প্রক্রিয়ায় মাধ্যমে বিদায় দেওয়া হবে। যাদের চাকরি স্থায়ী তারাই কেবল এ সুবিধা পাবে। মাস্টাররোল ভিত্তিক কর্মচারীরা এ সুবিধা পাবে না।

রিজভী বলেন, সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট, ভুলনীতি এবং মাথাভারী ও অদক্ষ প্রশাসন লোকসানের জন্য দায়ী, শ্রমিকরা নয়। কারণ মৌসুমে জুলাই-আগস্ট মাসে পাটের দাম যখন ১০০০-১২০০ টাকা থাকে তখন পাট না কিনে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে যখন পাটের দাম ২০০০-২২০০ টাকা হয় তখন পাট কেনা হয় এবং চাহিদার চেয়ে কম পাট ক্রয় করা হয়। বিদেশে বাজার খোঁজা, পণ্যের বহুমুখীকরণ এসবই মন্ত্রণালয় ও বিজেএমসিসহ প্রশাসনের কাজ। ফলে লোকসানের দায় কোনোভাবেই শ্রমিকরা নেবে না।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, করোনা ভাইরাস বিস্তারের পাশাপাশি কর্তৃত্ববাদী আওয়ামী সরকারের গণবিরোধী সিদ্ধান্ত জনগণ মেনে নেবে না। পাটশ্রমিকদের ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে আমরা এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহবান জানাচ্ছি।

রিজভী বলেন, করোনা নিয়ে সরকার প্রকৃত কোনো তথ্যই জনগণকে অবহিত করে না। আক্রান্ত ও মৃত্যুর পরিসংখ্যান বিষয়ে সরকারিভাবে যেটি বলা হচ্ছে তা দেশ-বিদেশে কোথাও গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে না। মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত সরকার সত্যকে নিয়েই তাদের যত ভয়। কারণ সত্য প্রতিষ্ঠিত হলে অগণতান্ত্রিক ও কর্তৃত্ববাদী সরকারের মসনদ নড়ে যাবে। তাই তারা সত্যকে আতঙ্ক মনে করে। জবাবদিহিহীন সরকারের আমলে তাদের লোকেরা করোনা নিয়ে যা ইচ্ছা তাই করে যাচ্ছে।

(ওএস/এসপি/জুন ২৯, ২০২০)