ঢাকা, বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

প্রচ্ছদ » শিক্ষা » বিস্তারিত

ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করছে ব্র্যাক ব্যাংক 

২০২২ মে ২১ ১৬:১৮:৪৪
ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করছে ব্র্যাক ব্যাংক 

স্টাফ রিপোর্টার : ব্র্যাক ব্যাংক চালু করেছে ‘আগামি পার্সোনাল লোন’ –একটি নতুন বিশেষায়িত প্রোডাক্ট যা সন্তানের উচ্চশিক্ষায় বাবা-মা এবং অভিভাবকদের সহায়তা করবে।

বাংলাদেশ ও বিদেশে শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার সুবিধার্থে এটিই ব্র্যাক ব্যাংক-এর প্রথম লোন প্রোডাক্ট। এটি ব্যাংকের 'আগামি স্টুডেন্ট ব্যাংকিং সার্ভিস'-এর অংশ–যা স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, এফডি ও ডিপিএস স্কিম, বিদেশে পড়ালেখারক্রেডিট কার্ড, স্টুডেন্ট ফাইলস এবং স্টুডেন্ট লোনের একটি পরিপূর্ণ সমাধান।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) অনুমোদিত সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বাবা-মা এবং আইনী অভিভাবকরা এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়েউচ্চশিক্ষায় অর্থায়নের জন্যও এই লোন নেওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে, বিদেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ব্যাংক নিজেই ফান্ড ট্রান্সফার করার ব্যবস্থা করবে।

শিক্ষার্থীর একাডেমিক ক্যালেন্ডারের সাথে মিল রেখে গ্রাহকের পছন্দের সময় অনুযায়ী৩/৪/৬/১২ মাস অন্তর অন্তরধাপে ধাপেঋণ বিতরণ করা হবে। সর্বোচ্চ ৫ বছরের মধ্যে ঋণ পরিশোধ করতে হবে। ন্যূনতম ২০,০০০ টাকা মাসিক আয় আছে এমন বাবা-মা/অভিভাবকরা লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং বার্ষিক ৮% আকর্ষণীয় ইন্টারেস্ট রেট উপভোগ করবেন। গ্রাহকরা মোট শিক্ষা ব্যয়ের ১৩০% পর্যন্ত ও সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকা লোন নিতে পারবেন।

নতুন এই প্রোডাক্ট সম্পর্কে, ব্র্যাক ব্যাংক-এর হেড অব রিটেইল ব্যাংকিং মোঃমাহীয়ুলইসলামবলেন: “বাংলাদেশে প্রতি বছর প্রায় ১০ লাখ শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায় পার করে। অনেক পরিবারের জন্যদেশের বেসরকারি ও বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার খরচ বহন করা বেশ কষ্টসাধ্য হয়। বাবা-মা এবং অভিভাবকদের আর্থিক চাপ কমিয়ে তাদেরকে সহযোগিতা করার জন্যই, আমরা নিয়ে এসেছি ‘আগামি পার্সোনাল লোন’।”

তিনি আরও বলেন: “সন্তানদের শিক্ষার খরচ বহন করতে এই লোন অভিভাবকদেরকে ব্যাপকভাবে উপকৃত করবে। শিক্ষার্থীরা এখন তাদের উচ্চশিক্ষার স্বপ্নপূরণ করতে পারবে। অনন্য এই প্রোডাক্টটি ব্র্যাক ব্যাংক-এর মূল্যবোধের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এবং সবার জন্য শিক্ষার সুযোগ তৈরি করে সমাজে অবদান রাখবে।”

(পিআর/এসপি/মে ২১, ২০২২)