ঢাকা, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

প্রচ্ছদ » শিক্ষা » বিস্তারিত

এইচএসসিতে উত্তীর্ণ ১০ লাখ, বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন ১৩ লাখের বেশি

২০২৩ ফেব্রুয়ারি ১০ ০০:৩১:১১
এইচএসসিতে উত্তীর্ণ ১০ লাখ, বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন ১৩ লাখের বেশি

স্টাফ রিপোর্টার : এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিযুদ্ধের পালা। এখন পর্যন্ত মেডিকেল কলেজ ছাড়া অন্য কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার দিন-তারিখ ঘোষণা হয়নি। চলতি মাসের শেষের দিকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ঘোষণা আসতে পারে। গুচ্ছ পদ্ধতিতে সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার সময় দ্রুত নির্ধারণ করা হতে পারে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও বাংলাদেশ শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস) বলছে, দেশে উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোট আসন রয়েছে ১৩ লাখ ২৬ হাজার ৪৮৬টি। এবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন ১০ লাখ ১১ হাজার ৯৮৭ জন। সারাদেশে জিপিএ-৫ পেয়েছেন এক লাখ ৭৬ হাজার ২৮২ জন। সেই হিসাবে অন্তত পৌনে তিন লাখ আসন খালি থাকবে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের ক্ষুদ্র একটি অংশ উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশেও পাড়ি দেন।

জানা গেছে, দেশের ৪৮ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে আসন রয়েছে প্রায় ৬০ হাজার। বেসরকারি ১০৮ বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে দুই লাখ তিন হাজার ৬৭৫টি আসন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে দুই হাজার ২১৫টি সরকারি ও বেসরকারি কলেজে আট লাখ ৭২ হাজার ৮১৫টি আসন রয়েছে।

এছাড়া ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০ হাজার, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৭ হাজার ৭৫৬, দুটি আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৪০, মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ১০ হাজার ৫০০, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজে ২৩ হাজার ৩৩০, চারটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে সাত হাজার ২০৬টি, টেক্সটাইল কলেজে ৭২০, সরকারি ও বেসরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারি পাঁচ হাজার ৬০০, ১৪টি মেরিন অ্যান্ড এরোনটিক্যাল কলেজে ৬৫৪, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আরও তিন হাজার ৫০০ এবং চটগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠানে ২৯০টি আসন রয়েছে।

এবারের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৮৫ দশমিক ৯৫ শতাংশ। ২০২১ সালে এ হার ছিল ৯৫ দশমিক ২৬ শতাংশ। অর্থাৎ গত বছরের চেয়ে এবার পাসের হার কমেছে ৯ দশমিক ৩১ শতাংশ।

জানতে চাইলে গুচ্ছ ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, গুচ্ছ ভর্তি আগের চেয়ে আরও কীভাবে সহজীকরণ করা যায়, তা নিয়ে আলাপ-আলোচনা করা হচ্ছে। কবে থেকে গুচ্ছ ভর্তি আবেদন শুরু করা হবে, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বৃহস্পতিবার উপাচার্যদের বৈঠক রয়েছে। বৈঠক শেষে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

(ওএস/এএস/ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৩)