ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

প্রচ্ছদ » লাইফস্টাইল » বিস্তারিত

দাঁত ভালো না থাকলে হতে পারে ডায়াবেটিস-হৃদরোগ

২০২৩ মে ০৩ ১২:৫৩:০২
দাঁত ভালো না থাকলে হতে পারে ডায়াবেটিস-হৃদরোগ

নিউজ ডেস্ক : প্রতিদিন নিয়ম করে অনেকেই দু’বেলা ব্রাশ করে দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে। আবার অনেকেই হয়তো করেন, তবে যারা এই নিয়ম অনুসরণ করছেন না তারা কিন্তু অজান্তেই বিভিন্ন কঠিন রোগের ঝুঁকি বাড়াচ্ছেন।

জানলে অবাক হবেন, দাঁতের স্বাস্থ্যের সঙ্গে কিন্তু বিভিন্ন ব্যাধির সংযোগ আছে। অর্থাৎ আপনার দাঁত যদি সুস্থ না থাকে তাহলে আপনি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হতে পারেন।

নতুন গবেষণা বলছে, মুখের স্বাস্থ্য শরীরের সার্বিক সুস্থতার ভিত্তি। তাই দাঁতের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে অবহেলা করা যাবে না। গবেষণা বলছে, দাঁতের স্বাস্থ্যের সঙ্গে আনুষঙ্গিক নানা রোগের যোগ আছে।

গবেষকরা জানাচ্ছেন, বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষই দাঁতের কোনো না কোনো সমস্যায় ভোগেন। তাদের মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি মানুষ এ সম্পর্কে সচেতন নন। দাঁত নষ্ট হয়ে গেলে তা তুলে ফেলা ছাড়াও যে দাঁতের যত্ন নিতে হয়, সে বিষয়ে সতর্ক নন অনেকেই।

চিকিৎসকদের মতে, মুখগহ্বর হলো শরীরের প্রবেশদ্বার। মুখে কোনো সমস্যা হলে তার প্রভাব শরীরের অন্যান্য অঙ্গেও পড়ে। যেমন- দাঁতের সঙ্গে হার্টের রোগের সম্পর্ক আছে।

কারণ দাঁতে ক্ষয় সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াগুলো রক্তবাহিকার মধ্য দিয়ে চলাচলের সময় ধমনীতে ‘প্লাক’ তৈরি করে। এ কারণে হৃদযন্ত্রে রক্ত চলাচল বাধাপ্রাপ্ত হয়।

ফলে বাড়ে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি। গবেষকরা আরও জানাচ্ছেন, দাঁত ভালো না থাকলে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করাও সম্ভব হয় না।

সম্প্রতি জার্নাল অব অবস্টেট্রিক্স অ্যান্ড গাইনোকলজি ইন্ডিয়ার এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দাঁতের সমস্যা আছে এমন গর্ভবতীদের প্রসব সংক্রান্ত জটিলতায় ভোগার ঝুঁকিও বেশি। তাই গর্ভাবস্থায় বেশি করে দাঁতের যত্ন নিতে বলেন গবেষকরা।

দাঁত ভালো রাখতে কী করবেন?
দাঁত সুস্থ রাখতে প্রয়োজন বাড়তি সতর্কতার। প্রতি দিন দু’বেলা দাঁত ব্রাশ করার পাশাপাশি খাওয়ার পরে মুখ কুলকুচি করতে হবে। না হলে খাবারের টুকরো দাঁতের ফাঁকে আটকে পরবর্তী সময়ে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এছাড়া নিয়মিত দাঁতের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে। পাশাপাশি দাঁতের জন্য খারাপ এমন খাবার খাবেন না। চা-কফি, মিষ্টি খাবার কম খাওয়ার চেষ্টা করুন। আর ধূমপানের অভ্যাস থাকলে তা এড়িয়ে চলুন। তাহলেই ভালো থাকবে দাঁত।

তথ্যসূত্র : হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি/দ্য হেলথ শটস/ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন

(ওএস/এএস/মে ০৩, ২০২৩)