ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

প্রচ্ছদ » মিডিয়া » বিস্তারিত

‘সাংবাদিকতা পেশার নিরাপত্তার জন্য ওয়েজবোর্ডের প্রয়োজনীয়তা আছে’

২০২৩ আগস্ট ২৫ ১৮:১৯:৩৭
‘সাংবাদিকতা পেশার নিরাপত্তার জন্য ওয়েজবোর্ডের প্রয়োজনীয়তা আছে’

স্টাফ রিপোর্টার : পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, একটি কার্টুনের মাধ্যমে হাজারো শব্দের চেয়েও বেশি কিছু বোঝানো যায়। কিন্তু বর্তমানে পত্র-পত্রিকায় আগের মতো কার্টুন দেখি না। পশ্চিমা জগতে কার্টুনের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। এই কার্টুনের সৃজনশীল স্রষ্টা ছিলেন এম এ কুদ্দুস।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ঢাকাস্থ রাজবাড়ী জেলা সাংবাদিক সমিতি আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)’র সিনিয়র সভাপতি প্রখ্যাত কার্টুনিস্ট এম এ কুদ্দুসের সম্মানে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকাস্থ রাজবাড়ী জেলা সাংবাদিক সমিতির সভাপতি নুরে আলম সিদ্দিকী হক।

সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রিমন রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বক্তৃতা করেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আব্দুল লতিফ মোল্লা, ডিইউজে সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন ও সহসভাপতি মানিক লাল ঘোষ, জাতীয় প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য কাজী রওনক হাসান, সাংবাদিক-উপস্থাপক গোলাম মোর্তোজা, প্রয়াত কার্টুনিস্ট এম এ কুদ্দুসের স্ত্রী তানিয়া কুদ্দুস, ঢাকাস্থ রাজবাড়ী সাংবাদিক সমিতির সহ সভাপতি শাহীন হাসনাত, সাংগঠনিক সম্পাদক অরন্য গফুর, দপ্তনর সম্পাদক শামীম মোল্লা, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নাহিদুর রহমান হিমেলসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সাংবাদিকতা পেশায় নিরাপত্তার জন্য ওয়েজবোর্ডের প্রয়োজনীয়তা আছে উল্লেখ করে মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আপনাদের (সাংবাদিকদের) ওয়েজ বোর্ডের ব্যাপারে মাঝে মাঝে শুনি।

এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট না হওয়ার কারণে আমার গভীর জ্ঞান নেই, তবে এটাও জানি ওয়েজবোর্ড ঘোষণা হয়, কিন্তু বাস্তবায়ন হয় না। এটাও মাঝে মাঝে পড়ি, ওয়েজবোর্ড ঘোষণা হয়, কেউ এটা মানে, কেউ মানে না। ওয়েজবোর্ড যেহেতু সবার সাথে আলোচনা করেই হয়েছে, তাহলে মানবে না কেন?
মন্ত্রী আরো বলেন, সাংবাদিকতা পেশায় নিরাপত্তার জন্য ওয়েজবোর্ডের প্রয়োজনীয়তা আছে, এটা আমি বুঝতে পারি। আমি নিজেও সরকারি চাকরি করেছি, আমরা যেমন নিরাপত্তা পাই, আপনারা সাংবাদিকরা তেমনটা পান না।

আবার কেউ কেউ নানা শর্টকাট উপায়ে অনেক দূর চলে যান। কিন্তু যারা মূল ধারার সাংবাদিকতা করে তাদের জীবন অনেক ঝড়-ঝাপটার। আমার ছোটবেলার অনেক সাংবাদিক বন্ধুদের দেখেছি ঢাকায় তারা অনেক কষ্ট করেছে।

সাংবাদিকরা সরকারের সহায়ক শক্তি উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, অনেকেই বলেন আমি সাংবাদিক বান্ধব, এটা আমার জন্য অত্যন্ত সম্মানের। লক্ষ কোটি টাকা দিয়ে আমরা কি কাজ করছি, কেন করছি, সেই টাকার মালিক জনগণের সেটা জানার অধিকার ও প্রয়োজন আছে।

মানুষের জানার মাধ্যম সাংবাদিকরা। সাংবাদিকদের কাছ থেকে আমিও জানি। নিজের প্রয়োজনে, প্রকৃত তথ্য জানার জন্য আমি সাংবাদিকদের সাথে মেশার চেষ্টা করি। সাংবাদিকতার পেশায় যারা ভূমিকা পালন করছেন, তারা রাষ্ট্র ও সমাজের প্রতি দ্বায়বদ্ধ থেকে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

(এমএল/এসপি/আগস্ট ২৫, ২০২৩)