ঢাকা, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

প্রচ্ছদ » অর্থ ও বাণিজ্য » বিস্তারিত

সারাদেশে রেশন ব্যবস্থা চালুর দাবি সিপিবির

২০২৩ সেপ্টেম্বর ৩০ ১৩:৪৪:৪৬
সারাদেশে রেশন ব্যবস্থা চালুর দাবি সিপিবির

স্টাফ রিপোর্টার : নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সিন্ডিকেট ভাঙা, উৎপাদক ও ক্রেতা সমবায় গড়ে তোলাসহ সারাদেশে রেশন ব্যবস্থা চালুর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিনেমা প্যালেস চত্বরে চট্টগ্রাম জেলা সিপিবি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এ দাবি জানান বক্তারা।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি অশোক সাহা। সিপিবি চট্টগ্রাম জেলার সহকারী সাধারণ সম্পাদক নুরুচ্ছাফা ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন- সিপিবি কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড শাহিন রহমান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড মৃণাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলার সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য উত্তম চৌধুরী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, এই সরকার দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ। সরকারের নীতিই এই সংকট তৈরি করেছে। চাল, ডাল, সবজি, তেল, চিনি, পেয়াঁজ, আদা, রসুন থেকে শুরু করে সব নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশ ছোঁয়া। বাজারে গেলে মানুষ এখন আর হাসিমুখে ঘরে ফিরতে পারে না। প্রতি মুহূর্তে মানুষ টের পাচ্ছে যে তার টাকার দাম কমে যাচ্ছে। যে হারে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে, সে হারে আয় বৃদ্ধি পায়নি।

দেশের বিপুল অংশের শ্রমজীবী মানুষ অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে দাবি করে বক্তারা বলেন, এই মুহূর্তে বাংলাদেশে প্রায় ৪ কোটি লোক প্রয়োজনীয় ক্যালরির খাবার পাচ্ছেন না। গোটা বাজার আজ গুটিকয়েক ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণে। এই ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনো পদক্ষেপ নেই। বরং এসব সিন্ডিকেটবাজদের তোয়াজ করেই সরকার চলছে। সরকার মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে।

তারা আরও বলেন, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে অবৈধ ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ভেঙে দিতে হবে। মজুতদার -মুনাফাখোর ও মধ্যস্বত্বভোগীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। বিএডিসির কার্যক্রম ব্যাপকভাবে প্রসারিত করে সারাদেশে সার, বীজ, কীটনাশক, বিদ্যুৎ, সেচ যন্ত্রপাতিসহ কৃষি উপকরণ ন্যায্যমূল্যে এবং সময়মতো কৃষকের কাছে সরাসরি সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে, যাতে পণ্যের উৎপাদন ব্যয় কমে আসে। পণ্য পরিবহনে দুর্নীতি, হয়রানি ও চাঁদাবাজি, হাটবাজারে ইজারাদারি ব্যবস্থা বন্ধ করতে হবে। দক্ষ ও দুর্নীতিমুক্তভাবে টিসিবির কার্যক্রম ব্যাপকভাবে বাড়িয়ে অত্যাবশ্যক পণ্যসামগ্রীর আমদানি, মজুত ও সরবরাহ ব্যবস্থা সচল রাখতে হবে।

সিপিবি নেতারা বলেন, রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে খাদ্যদ্রব্যসহ অত্যাবশ্যকীয় দ্রব্যসামগ্রীর বাফার স্টক গড়ে তোলা, পাইকারি ও খোলাবাজারে পণ্যমূল্য তদারকির জন্য ‘মূল্য নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ’ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আপৎকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে আপৎকালীন দ্রুততার সঙ্গে ঝটিকা কার্যক্রম পরিচালনার প্রস্তুতি রাখা। এছাড়া পৃথক মন্ত্রণালয় বা বিভাগের মাধ্যমে গ্রাম-শহরসহ সারাদেশে সাশ্রয়ী, দক্ষ ও দুর্নীতিমুক্ত ‘গণবণ্টন ব্যবস্থা’ চালু ও স্বল্প আয়ের মানুষকে বাঁচাতে সারাদেশে পর্যাপ্ত ন্যায্যমূল্যের দোকান ও রেশনিং ব্যবস্থা চালুর দাবি জানান তারা।

(ওএস/এএস/সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২৩)