ঢাকা, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১

প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিস্তারিত

রবিবার সাগর দ্বীপ ও খেপুপাড়া উপকূলে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড়

২০২৪ মে ২৪ ১৭:২২:২৭
রবিবার সাগর দ্বীপ ও খেপুপাড়া উপকূলে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড়

স্টাফ রিপোর্টার : পশ্চিমবঙ্গের সাগর দ্বীপ ও পটুয়াখালীর খেপুপাড়ার মাঝ দিয়ে রবিবার (২৬ মে) উপকূলে ওঠে আসবে ঘূর্ণিঝড়। এরআগে, শনিবার (২৫ মে) মধ্য বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপটি ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে, যার নাম হবে রিমাল (Re-Ma)।

শুক্রবার (২৪ মে) ভারত ও বাংলাদেশের আবহাওয়া অফিস এমন পূর্বাভাস দিয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া বিজ্ঞানী ড. ডিএ পত্তানায়েক জানিয়েছেন, ২৬ মে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ঘূর্ণিঝড়টি উপকূলে আঘাত হানবে। এক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের সাগর দ্বীপ ও পটুয়াখালীর খেপুপাড়ার মাঝ দিয়ে উপকূলে ওঠে আসবে। উপকূলে আঘাত হানার সময় এটির কেন্দ্রের গতিবেগ ওঠে যাবে ১৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত।

এদিকে, বাংলাদেশের আবহাওয়াবিদ খো. হাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, পূর্বমধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে
একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি শুক্রবার (২৪ মে) দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৮০৫ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৪০ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৭৬৫ কি.মি. দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৩০ কি.মি. দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হতে পারে।

নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কি.মি. এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কি.মি., যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কি.মি. পর্যন্ত বাড়ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর মাঝারি ধরনের উত্তাল রয়েছে।

এই অবস্থায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে এক নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

(ওএস/এসপি/মে ২৪, ২০২৪)