ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

প্রচ্ছদ » অগ্নিকন্যা » বিস্তারিত

রাজশাহী বিভাগের ‘শ্রেষ্ঠ জয়িতা’ সিরাজগঞ্জের মিনতী রানী

২০১৭ সেপ্টেম্বর ২২ ১৭:৩৭:৪৮
রাজশাহী বিভাগের ‘শ্রেষ্ঠ জয়িতা’ সিরাজগঞ্জের মিনতী রানী

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : মিনতী রানী একজন আদিবাসি গৃহবধু। তিনি সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলার অজোপাড়া গাঁও দেশীগ্রাম ইউনিয়নের গুড়পিপুল গ্রামের জ্ঞানেন্দ্র নাথের স্ত্রী। অভাব সংসারে গেলেই থাকতো। তাই সংসারের অভাব দূর করার লক্ষ্যে ২০০৩ সালে ২০ জন পরিশ্রমী নারীকে নিয়ে ‘আশার প্রদীপ সমবায় সমিতি’ সংগঠিত করেন।

তিনি বিভিন্ন সংস্থার সহায়তা নিয়ে সরকারি-বেসরকারি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কাজ করে আসছেন। ২০০৭ সালে সমবায় অধিদপ্তরের রেজিষ্ট্রেশন পাওয়া এ সমিতির বর্তমানে সদস্য সংখ্যা ২৫০ জন। ২০১২ সালে আদিবাসিদের স্যানিটেশন, দর্জি, তাঁত, কম্পিউটার, মৎস্য ও গবাদি পশুপালন প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে মিনতী রাণি গড়ে তোলেন গুড়পিপুল আদিবাসি তাঁত শিল্প প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও তাড়াশ ক্ষুদ্র নৃ-তাত্বিক মহিলা উন্নয়ন সংস্থা।

এই সংস্থাগুলোর মাধ্যমে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান, সংস্থাগুলোর বিভিন্ন পদে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উৎপাদিত পণ্য বিক্রির মাধ্যমে আয়কৃত অর্থ সমিতির সদস্যদের প্রদানের মাধ্যমে আদিবাসিদের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি ও আর্থিক অবস্থার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন এই পরিশ্রমী নারী।

বেকার আদিবাসী নারী ও পুরুষদের বিভিন্ন কাজে প্রশিক্ষণের পাশাপাশি কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করায় তাকে ২০১৪ সালে রাজশাহী বিভাগের ‘সেরা জয়িতা’ হিসেবে পুরস্কার করা হয়। মিনতী রাণি জানান, কোন পুরস্কার প্রাপ্তি নয়, এই অঞ্চলের আদিবাসিদের আর্থসামাজিকভাবে উন্নতি করতে পারাটাই আমার সেরা প্রাপ্তি।

(এমএসএম/এসপি/সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৭)