ঢাকা, বুধবার, ৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮

প্রচ্ছদ » মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন » বিস্তারিত

২১ জুলাই, ১৯৭১

জাতির উদ্দেশে এম. মনসুর আলী স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে ভাষণ দেন

২০২১ জুলাই ২১ ০০:০৬:৩২
জাতির উদ্দেশে এম. মনসুর আলী স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে ভাষণ দেন

উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ ডেস্ক :৪র্থ বেঙ্গলের ‘এ’ কোম্পানীর এক প্লাটুন যোদ্ধা পাকহানাদার বাহিনীর শালদা নদী অবস্থানে অতর্কিত আক্রমণ চালায়। এ আক্রমণে ৮ জন পাকসেনা নিহত ও ৭ জন আহত হয়। দেড়ঘন্টা যুদ্ধের পর মুক্তিযোদ্ধারা অবস্থান ত্যাগ করে নিরাপদে নিজ ঘাঁটিতে ফিরে আসে।

মুক্তিবাহিনীর একটি এ্যামবুশ দল চাঁদপুর থেকে আশিকাটির দিকে আগত পাকবাহিনীর একটি টহলদার কনভয়কে মেশিনগানের সাহায্যে আক্রমণ চালায়। এতে কনভয়ের প্রথম তিনটি জীপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে রাস্তা থেকে পড়ে যায় এবং অবশিষ্ট গাড়ীগুলোরও যথেষ্ট ক্ষতি সাধিত হয়। পাকসেনারা গাড়ী থেকে নেমে পাল্টা আক্রমণে চেষ্টা চালালে মুক্তিযোদ্ধাদের গুলির মুখে টিকতে না পেরে পালিয়ে যায়। এ অভিযানে ১০ জন পাকসেনা নিহত ও ২৫ জন আহত হয়।

মুক্তিবাহিনী আশিকর্টির ৩ মাইল পশ্চিমে পাকবাহিনীর একটি কনভয়কে এ্যামবুশ করে। এতে পাকসেনাদের ৩ জন নিহত ও ৫ জন আহত হয় এবং একটি ট্রাক ক্ষতিগ্রস্ত হয। এ্যামবুশের খবর পেয়ে পাকবাহিনীর হাজীগঞ্জ ক্যাম্প থেকে একটি শক্তিশালী কোম্পানী ঘটনাস্থলে এলে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে তুমুল সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষে ১২ জন পাকসেনা নিহত ও ১০ জন আহত হয়। পরে মুক্তিযোদ্ধারা অবস্থান পরিত্যাগ করে নিরাপদে নিজ ঘাঁটিতে ফিরে আসে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী এম. মনসুর আলী স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ প্রদান করেন। তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সাহায্য সংস্থা পাকিস্তানকে অর্থনৈতিক সাহায্য বন্ধ করায় তাদের অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আজ দু‘টি সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র রাষ্ট্র। সুতরাং বাংলাদেশের জন্য অর্থনৈতিক সাহায্য চাওয়ার কোনো অধিকার ইসলামাবাদ সরকারের নেই।

তিনি বলেন, একমাত্র সাড়ে সাত কোটি বাঙালির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের দ্বারা গঠিত স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকারের মাধ্যমেই বাংলাদেশে বৈদেশিক সাহায্য আসতে পারে। অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, ইয়াহিয়া সরকারকে সাহায্য করার অর্থই হচ্ছে বাংলাদেশে গণহত্যায় সক্রিয় অংশ নেয়া। তিনি বলেন, যেহেতু বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র সেহেতু ২৫ মার্চের পর থেকে বাংলাদেশের যাবতীয় খাজনা ও ট্যাক্স একমাত্র বাংলাদেশ সরকারেরই প্রাপ্য। কোনো বিদেশী সরকারের এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খান ফাইনানসিয়াল টাইমসের সাথে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ভারত যদি পূর্ব পাকিস্তানের যে কোনো অংশে আক্রমণ চালায় বা এর যে কোনো অংশ দখল করতে চেষ্টা করে তাহলে পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করবে এবং সে পরিস্থিতিতে পাকিস্তান একা থাকবে না।

ইসলামী সেক্রেটারিয়েট মহাসচিব টুঙ্কু আবদুর রহমান পূর্ব পাকিস্তান সফরে ঢাকা আসেন।

পাকিস্তান ডেমোক্রেটিক পার্টির নেতা নবাবজাদা খান বলেন, পূর্ব পাকিস্তানের অধিকাংশ জাতীয় পরিষদ সদস্য দেশ ত্যাগ করায় এই পরিষদের গুরুত্ব ও প্রয়োজন শেষ হয়ে গেছে। বর্তমানে জাতীয় পরিষদ আঞ্চলিক পরিষদে পরিণত হয়েছে।

তথ্যসূত্র : মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর।
(ওএস/এএস/জুলাই ২১, ২০২১)