ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

প্রচ্ছদ » শিল্প-সাহিত্য » বিস্তারিত

মনিরুজ্জামান প্রমউখ’র ৭টি কবিতা

২০২১ সেপ্টেম্বর ০৪ ১৪:৫২:৪৬
মনিরুজ্জামান প্রমউখ’র ৭টি কবিতা







কাগজে'র নোট'

কোরোনা' এসেও জ্বর সারলো-না !
জ্বরে, আর- জ্বরে'র উপশম হলো-না !
জালিয়াতি, প্রতারণা কোরোনা'র চেয়েও
শক্তিমান, দিকে দিকে তার- যথেচ্ছ প্রমাণ ।

সব অবক্ষয়ে'র মাদার-বোর্ড যখন- হৃদয়-অবক্ষয় ?
কোরোনা' কী সা-কি-না-কা; যা করে পরিশোধন-প্রণয় ?

কাগজে'র নোট; লোকে যা-রে, টাকা' বলে ডাকে ।
সেই হলো- আদি ভাইরাস সব সৃষ্টি'র হার, যেখানে !
মানুষ- মানুষ ছিলো পুরো কবে, কোন কালে, কোন সমূহে ?

Iock-down' নাম তার

মানুষ বাঁচে, অ-দৃশ্য ক্ষমতা আছে, যার ।
কে যে- তার ভেতর-বাহির কেউ জানে-না, তার খবর !

corona' শুধু- মানুষে'র শ্বাস খুঁজে বেড়ায়- জন হতে জনে, অদ্ভুত কহর !
দূর্বল প্রতিরোধ-হীন আত্মা-গুলো- কারণ-হীনে'র মতো- চলে যায়, ও-পার !

অপেক্ষা'র অন্তর খুঁজে খুঁজে, দিশেহারা- সব-প্রাণ, সব-দেহে'র ভ্রমর ।
phase- 1, 2, 3'- এর কবলে, সময়ে'র নির্দয় প্রহর !

বাঁচায়ও না, মারেও না, পর- মরা'র হার, লকডাউন' নাম তার ।।

কোরানা' বিষয়ক

আতঙ্ক-টা তুলে দাও ।
দেখবে, আর- ভয় নেই, লক্-ডাউন নেই, নেই মৃত্যু ।

জন্ম আর- মূত্যু'র মাঝে, ব্যবধান-
সাহস আর- ভয়'- এর বিধান ।

ট্রোল করে, নাল করা'র প্রবণতা- ছেড়ে দাও ।

সব ঢেউয়ে, আঘাত থাকে, বল পরিমাণ ।
সব বল'ই মৃত্যু'র পরিণাম- প্রবর্তন করে-না ।

আমরা'ই শুধু- বল-কে খাল ভেবে, কুদে পরি ।

কোরোনা কতো- বল-জোর-শক্তি-মান ?
মানুষে-রা তার অধিক- মনে বর্ধমান ।।

হে প্রভু; ক্ষমা করো

বিধি তুমি কার- মানুষে'র, নাকি কোরোনা'র, বলবে ?
শ্রেষ্ঠ-কে বলি-দান করছো- তুমি, কিসের তরে, বোঝাবে ?

অ-দেখা'র কাছে, দেখা'র এভাবে'ই কী- মৃত্যু হবে ?
তোমার পৃথিবী-তে মানুষ'ই কেবল- স্বার্থপর জীবন-সূত্রে !

সে'ই দোষে'ই কী- তোমাকে মহামারী'র প্রলয়- সাজাতে হয় ?
সে'ই দোষে'ই কী- তোমাকে মুখ চেয়েও মুখ ফিরিয়ে নিতে হয় ?

হে প্রভু; ক্ষমা করো- নিত্য প্রাণ-হানী'র এই অ-স্থগিত ব্যবস্থা- হতে । এক-টা অ-লৌকিক বৃষ্টি দিয়ে, থামিয়ে দাও- কোরোনা'র ভঙ্কা- আজ হতে ।।

কোরোনা-যুক্ত ঈদ

সব হালে- ভালো জীবন ।
মোটে'র ওপর ধরে, যে-জন ।
যখন- বাইরে-টা'র আগমন ।
তখন- ভেতর-টা'র বহির্গমন ।
সুখে'র ঘরে- আলো যেমন ।
দুঃখে'র ঘরে- মায়া তেমন ।

ঈদে'র খুশী- সবার স্ফূর্তি ।
কোরোনা' নয়-কো বাধা'র দুর্গতি ।
যোগাযোগ যখন- আনন্দ খুঁটি ।
মিডিয়া তখন- জবর বুটি ।

ছড়িয়ে যাও যুগে'র বাহার ।
বাধা'র বিন্দু সব- জোয়ার ।
আড়াল হলে- বাঁড়াল হবে ।
নড়ে গেলে'ই নেচে ওঠবে ।
ঈদ আনন্দ- সবার ঘরে ।
ঘরোয়া হলে'ই এবার- সুখ্য হবে ।।

কোরোনাকাল

বাতাস'- এর শরীর ভাইরাসে'র বাস ।
মুক্ত বিভাস নেই, আর- কোথাও আশ্বাস !
আছে, ছড়িয়ে পরা- হাপিত্যেশ, গ্রাস !

কোরবানি'র কোপ যেনো- কাটে কোরোনা ।
ঘরে'র সব- মানুষ যদিও এক-না ।
একে অপরে'র পরিপূরক বলছে- কোরোনা।

নিরব যুদ্ধ চলছে- নিজে'র জন্য নিজে'র ।
নিরব যুদ্ধ চলছে- নিজে'র জন্য অপরে'র ।
কোরোনা-কে মার দিতে- মানুষ সকলে'র ।।

জীবন-শহর

মেঘে'র গর্জন- ঘুমে'র ব্যামো হলেও
প্র-বর্তনে'র মন তারে, ক্ষমা করে- সাকুল্যে ।
কোরোনা প্রাণে'র বায়ু তুলে, নেয়-
ঈশ্বরে'র প্রতীম হতে, স্বর্গ নির্লোভ দেহে'রও !
প্রবীণ মানব পাখি-গুলো মরে যায়- অ-হেতুক !

স্বপ্ন ভাঙা ঘুম হতে,
জেগে ওঠে,
আমরা- জীবন নয়, মৃত্যু দেখি ।

কাল রাত পৈতৃক শিকড় হতে, জন্ম লয়- আরেক-টা মৃত্যু-নদী ।
শিশির শৈশবে জুড়ে রয়েছে, তার-অনবদ্য কিছু অক্ষর, কিছু স্মৃতি ।
কোনো কোলাহল নেই, কোনো আপ্লুত আবেগও নেই !
রোনাজারি'রও মৃত্যু ঘটেছে, মৃত্যু-বাহারে'র অ-সমাপিকা হতে ।

ভুবন আরশ হতে,
নেমে আসবে,
কবে- মরণ-বিয়োগ দূত ?

রূপালী মন-শস্যে কে দেবে, ঢেলে- আমাদের সনাতন গীত ?
বাতাসে'র গায় গায়- ক্ষয়-বারুদ কে দেবে- নিঃশ্বেষ করে, হীত ?
অপেক্ষা'র পাঞ্জেরি বৃত্তে, পুণঃজন্ম হোক এবার- ভাইরাস-হীন জীবন-শহর ।।