ঢাকা, সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

প্রচ্ছদ » মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন » বিস্তারিত

০২ জানুয়ারি, ১৯৭১

জনাব খার লাহোরের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন

২০২২ জানুয়ারি ০২ ০৮:১৫:৪৭
জনাব খার লাহোরের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন

উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ ডেস্ক : ভুট্টোর দূত, গোলাম মোস্তফা খার ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের মধ্যে আজ অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, আগামী ১৭ জানুয়ারির পর আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ মুজিবুর রহমান ও পিপলস পার্টি প্রধান জেড. এ. ভুট্টো শাসনতান্ত্রিক প্রশ্ন আলোচনার জন্য ঢাকায় বৈঠকে মিলিত হবেন। গোলাম মোস্তফা খার বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে তাঁর সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করেন এবং তাঁরা উভয়েই শাসনতন্ত্র রচনা সম্পর্কে দুই দলের সহযোগিতার ব্যাপারে আলোচনা করেন।

জনাব খার আজ লাহোরের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন। ঘূর্ণিদুর্গত এলাকায় সাহায্য কাজের অগ্রগতি বিবেচনার জন্য পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নরের সভাপতিত্বে এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পূর্ব পাকিস্তানের চীফ সেক্রেটারি, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন চেয়ারম্যান, পিএডিসি’র চেয়ারম্যান, অর্থ দফতরের সেক্রেটারি, কৃষি দফতরের সেক্রেটারি এবং রিলিফ কমিশনার উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে, দুর্গত লোকজনকে যথাশীঘ্র সম্ভব আত্ম-নির্ভরশীল করে তোলার উদ্দেশ্যে টেস্ট রিলিফ ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। দুর্গত এলাকায় কৃষকদের কৃষিঋণ ও বীজ প্রদান এবং চাষ কাজে ট্রাক্টর সরবরাহ করার জন্যও উক্ত বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ঢাকায় নিখিল পাকিস্তান সংবাদপত্র সমিতির আঞ্চলিক কমিটির জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে খুলনা নিউজপ্রিন্ট মিলস কর্তৃপক্ষ কর্তৃক একতরফাভাবে নিউজপ্রিন্টের মূল্যবৃদ্ধিতে দুঃখ প্রকাশ করা হয়। প্রতিটনে ৩২৫ টাকা করে নিউজপ্রিন্টের মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রতিটন ১৫৪০ টাকা বর্ধিত হারে নতুন করে লেটার অব ক্রেডিট খোলার অনুরোধ জানিয়ে খুলনা নিউজপ্রিন্ট মিলসের প্রেরিত পত্র নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করা হয়। বৈঠকে ১৯৭০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত নিখিল পাকিস্তান সংবাদপত্র সিমিতির কার্যকরী কমিটির জরুরি সভায় এক প্রস্তাব এবং পরবর্তী সময়ে পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নরের সাথে সংবাদপত্র শিল্পের প্রতিনিধিদের আলোচনার কথা স্মরণ করা হয়। সেই আলোচনা শেষে প্রাদেশিক সরকার কর্তৃক এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছিলো যে, খুলনা নিউজপ্রিন্ট মিল কর্তৃপক্ষের নিউজপ্রিন্টের মূল্যবৃদ্ধি সংক্রান্ত প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে না। সরকার সংবাদপত্র শিল্পকে আশ্বাস দান করেছিল যে, এই বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত প্রতিনিধিদের সাথে যথাযথ আলোচনার পরই করা হবে।

ঘূর্ণিদুর্গত এলাকায় সাহায্য কাজের অগ্রগতি বিবেচনার জন্য পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নরের সভাপতিত্বে এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পূর্ব পাকিস্তানের চীফ সেক্রেটারি, কৃষি দফতরের সেক্রেটারি এবং রিলিফ কমিশনার উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে, দুর্গত লোকজনকে যথাশীঘ্র সম্ভব আত্ম-নির্ভরশীল করে তোলার উদ্দেশে টেস্ট রিলিফ ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। দুর্গত এলাকার কৃষকদের কৃষিঋণ ও বীজ প্রদান এবং চাষ কাজে ট্রাক্টর সরবরাহ করার জন্যও উক্ত বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তথ্যসূত্র : মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর।

(ওএস/এএস/জানুয়ারি ০২, ২০২২)