ঢাকা, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত

‘পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কথা শুনলেই বিএনপির মুখ কালো হয়ে যায়’

২০২২ মে ২২ ১৮:২৫:১১
‘পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কথা শুনলেই বিএনপির মুখ কালো হয়ে যায়’

স্টাফ রিপোর্টার : পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরুর সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ দলটির নেতাদের উপহাসের প্রসঙ্গ টেনে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ। এখন উদ্বোধনের কথা শুনলেই বিএনপির মুখ কালো হয়ে যায়।

মৎস্যজীবী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রবিবার (২২ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ। আগামী জুনেই সেতুর উদ্বোধন হবে। সেতুর নির্মাণকাজের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের কথার লড়াই চলছে। এর ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পদ্মা সেতু জনগণের টাকায় হয়েছে, কারও পকেটের টাকায় হয়নি।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে আছে বলেই বাংলাদেশ আজ ভালো আছে। শেখ হাসিনার জন্যই পথ হারায়নি বাংলাদেশ। শেখ হাসিনা থাকলে বাংলাদেশের উন্নয়ন হবে। শেখ হাসিনা থাকলে আমরা থাকবো।

বর্তমান পদ্ধতি মেনেই বিএনপিকে নির্বাচনে আসতে হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের অপচেষ্টা করছে বিএনপি। পানি ঘোলা করে সময় এলে বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে। নিয়মের বাইরে অন্য কোনো পথ নেই। বিএনপিকে নিয়ম মেনেই নির্বাচনে আসতে হবে।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে জাদুঘরে চলে গেছে। পৃথিবীর অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও সেভাবেই হবে। শেখ হাসিনার সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে। সরকার অবাধ, সুষ্ঠু, সুন্দর নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবে। এটাই নিয়ম, এর বাইরে অন্য কোনো পথ নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির কথায় শেখ হাসিনার সরকার পদত্যাগ করবে কেন? বিএনপির কথায় শেখ হাসিনা পদত্যাগ করবেন না। বিএনপি ব্যর্থ রাজনৈতিক দল। আন্দোলনে ব্যর্থ, নির্বাচনে ব্যর্থ। তাদেরই (বিএনপি) টপ টু বটম পদত্যাগ করতে হবে। বিশ্বসভায় শেখ হাসিনার নেতৃত্ব প্রশংসিত। ফখরুল সাহেব, চিৎকার-চেঁচামেচি করে লাভ নেই। ক্ষমতার পরিবর্তন হবে নির্বাচনে।

মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি সায়ীদুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পদাক শেখ আজগর নস্কর, মৎস্যজীবী লীগের কার্যকরী সভাপতি মো. সাইফুল আলম মানিক ও সহ-সভাপতি আবুল বাশার মুহাম্মদ আলম প্রমুখ।

(ওএস/এসপি/মে ২২, ২০২২)