ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯

প্রচ্ছদ » পাশে দাঁড়াই » বিস্তারিত

‘হগ্গলি আমার লগে প্রতারণা করলো, কেউই কথা রাহেনি বাহে’

২০২২ জুন ১৯ ১৯:৩০:২৫
‘হগ্গলি আমার লগে প্রতারণা করলো, কেউই কথা রাহেনি বাহে’

দিলীপ চন্দ, ফরিদপুর : মফিজ খলিফা (৮০)। জীবনের নিষ্ঠুরতার শিকার হয়ে ফরিদপুরের রেলস্টেশনই যার বাড়ি-ঘর। খাওয়া-দাওয়াও এই রেলস্টেশনটিতে। কখনো খেয়ে কখনোবা না খেয়েই দিন কাটে তার। যেটুকু মাথা গুঁজার ঠাই ছিলো দু'বেলা খাবার দেওয়ার কথা বলে সেটুকু কেড়ে নিয়েছে চাচাতো ভাই আনার খলিফা। দুনিয়াতে আপন বলতে নেই কেউ আর। বড় একা সে।

এই বৃদ্ধের পৈতৃক বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার কানাইপুর গ্রামে। স্বপ্ন বুনতে যৌবনে সেখানে বিয়ে করে বাসা বাঁধলেও নিষ্ঠুর কপাল ভেঙে সুখ পাখিটাও একদিন উড়ে যায় তাকে একা করে। দুটি সন্তান ছিলো এই বৃদ্ধের। তার একটি পানিতে ডুবে মারা যায় আর অন্যটি খেঁচুনি রোগে পরপারে পাড়ি জমান। এরপর আপন স্ত্রীও একা করে ছেড়ে চলে যায় তাকে। সেই থেকেই পথে পথে ঘুরছে এই বৃদ্ধ। কখনো ভিক্ষাবৃত্তি কখনওবা মানুষের দুয়ারে হাত পেতে চলছে জীবন তার।

জীবনের তাগিদে ১০ বছরের আগে নিজ এলাকা ছেড়ে পাড়ি জমান পাশ্ববর্তী ফরিদপুর জেলায়। এখানে ভিক্ষা করে কোনো রকমে চলছিল তার জীবন। কিন্তু বয়সের ভারে এখন আর সেভাবে চলাফেরা করতে পারেননা এই বৃদ্ধ। তাইতো মাথা গুঁজার ঠাই হিসেবে বেছে নিয়েছেন ফরিদপুরের রেলস্টেশনটি।

(ডিসি/এএস/জুন ১৯, ২০২২)