ঢাকা, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রচ্ছদ » খেলা » বিস্তারিত

পাকিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি!

২০২৩ নভেম্বর ২৮ ১৪:৩৪:৪৭
পাকিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি!

স্পোর্টস ডেস্ক : চলতি বছর শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে এশিয়া কাপের আয়োজন করেছিল পাকিস্তান। এরপর ২০২৫ সালে আট দলের অংশগ্রহণে এককভাবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আায়োজক হওয়ার কথা চূড়ান্ত ছিল দেশটির। সে অনুযায়ী, প্রস্তুতিও চলছিল ঠিকঠাক। কিন্তু হঠাৎ করেই পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে মোড় নিচ্ছে।

পাকিস্তানি গণমাধ্যমের প্রতিবেদন, চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আসর পাকিস্তান থেকে সরিয়ে অন্য কোনো দেশে আয়োজন করা হবে। নতুন কোনো ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে আইসিসি আয়োজিত টুর্নামেন্টটি। অর্থাৎ এককভাবে হয়তো আর আসরের আয়োজক হতে পারবে না পাকিস্তান।

দীর্ঘ আট বছর পর আগামী ২০২৫ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এর আগে ২০১৬ সালে শেষবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যকার রাজনৈতিক উত্তেজনা দীর্ঘদিনের। যে কারণে ভারতীয় ক্রিকেটারদের পাকিস্তান সফরে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ভারত সরকার। ফলে পাকিস্তানে টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হলে, সাধাণরণ দৃষ্টিতে মনে হতে পারে যে, টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবেন না ভারতীয় ক্রিকেটাররা।

এসব জল্পনা-কল্পনার মধ্যে সম্ভাব্য সমাধান হিসেবে যা বলা হচ্ছে সেটি হলো, টুর্নামেন্টটি অন্য দেশে নিয়ে যাওয়া। ভারত সরকার যদি তার অবস্থান পরিবর্তন না করে, তাহলে টুর্নামেন্টটি পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হবে না। শেষ পর্যন্ত যদি পাকিস্তানে এককভাবে আয়োজন করা সম্ভব না হয়, তাহলে অন্য কোনো দেশের সঙ্গে যৌথভাবে টুর্নামেন্টটির আয়োজন করতে হবে পাকিস্তানকে। যেমনটি করা হয়েছিল এশিয়া কাপে।

তবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড এখনো এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে ধরে নেওয়া হচ্ছে, ভেন্যু পরিবর্তনের সিদ্ধান্তের কঠোর প্রতিবাদ করতে পারে পাকিস্তান। আর যদি পরিবর্তন হয়েই যায়, তাহলে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে সম্ভাব্য ভেন্যু হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

ম্যাচগুলো দুবাই, আবুধাবি এবং শারজাহতে অনুষ্ঠিত হতে পারে। কারণ এর আগে ২০২১ সালের আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল আরব আমিরাত। যদি এবারও আমিরাতে টুর্নামেন্ট হয়, তাহলে এটি হবে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির ইতিহাসে দ্বিতীয় আইসিসি টুর্নামেন্টের আয়োজন।

(ওএস/এএস/নভেম্বর ২৮, ২০২৩)