ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

প্রচ্ছদ » দেশের খবর » বিস্তারিত

সরকারি অর্থ আত্মসাৎ ও অসদাচরণের অভিযোগ 

কেন্দুয়া উপজেলা পোস্ট মাষ্টার শাহেদুন্নাহার সাময়িক বরখাস্ত 

২০২৪ জুলাই ১০ ১৯:০৯:৪১
কেন্দুয়া উপজেলা পোস্ট মাষ্টার শাহেদুন্নাহার সাময়িক বরখাস্ত 

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া : সরকারি অর্থ আত্মসাৎ এবং সেই প্রমাণাদি ও সরকারি ডকুমেন্টস ঔদ্ধত্যপূর্ণভাবে ছিড়ে ফেলার অভিযোগে কেন্দুয়া উপজেলা পোস্ট মাষ্টার শাহেদুন্নাহারকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। গত ৭ জুলাই কেন্দ্রীয় সার্কেল ঢাকা পোস্টমাষ্টার জেনারেল মো: ফরিদ আহম্মেদ স্বাক্ষরিত পত্রে এ অফিস আদেশ দেওয়া হয়।

জানা যায়, কেন্দুয়া উপজেলা পোস্ট মাষ্টার শাহেদুন্নাহার কেন্দুয়া উপজেলা ডাকঘর নেত্রকোনার সঞ্চয়পত্রের ব্যবহৃত ও অব্যবহৃত কূপন জালিয়াতি মূলকভাবে এবং বাতিল মুনাফা কূপনে ফ্লইড ব্যবহারের মাধ্যমে কূপন পূনঃ ব্যবহার করে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করেন। একই সাথে সংশ্লিষ্ট প্রমাণাদি ও সরকারি ডকুমেন্টস ঔদ্ধত্যপূর্ণভাবে ছিড়ে পেলেন। এছাড়া তদন্ত টিমের নিকট লিখিত বিবৃতি প্রদানেও অস্বীকৃতি জানানোসহ সুষ্ঠ তদন্ত কার্যে অসহযোগিতা ও ব্যাঘাত সৃষ্টি করার অভিযোগ উঠেছে শাহেদুন্নাহারের বিরুদ্ধে। এরই প্রেক্ষিতে সরকারি কর্মচারি (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮- এর ৩ (খ) মোতাবেক ‘অসদাচরণ’ এর আওতাভুক্ত হওয়ায় এবং প্রাথমিক তদন্তে শাহেদুন্নাহারের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সরকারি চাকুরি আইন, ২০১৮-এর ধারা ৩৯ (১) এবং সরকারি কর্মচারি (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮-এর বিধি ১২ (১) অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সাময়িক বরখাস্ত কালে তিনি বিধি মোতাবেক খোরপোষ ভাতা পাবেন।

এ ব্যাপারে শাহেদুন্নাহারের ০১৭১৭-৬২৮০৪৪ মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আজ বুধবার দুপুরে কেন্দুয়া উপজেলা পোস্ট অফিসে গিয়ে পোস্ট মাষ্টারের দায়িত্বে থাকা পোষ্টাল অপারেটর মধু ভূষনের কাছে পোস্ট মাষ্টার শাহেদুন্নাহারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যতটুকু জানি, শাহেদুন্নাহার নেত্রকোনা সদরে বাসায় আছেন। আপনি কিভাবে এ পদে আসলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ময়মনসিংহের সুপার রিপন রায় ০৭ জুলাই রাত ১০ টার দিকে মোবাইল ফোনে আমাকে ভারপ্রাপ্ত পোস্ট মাষ্টার হিসেবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশ মোতাবেক আমি দায়িত্ব পালন করছি।

এদিকে কেন্দুয়া, নেত্রকোনা ও মদন উপজেলার দায়িত্ব প্রাপ্ত পরিদর্শক ও তদন্তকারী কর্মকর্তা মো: আবু হেনা মুনাসিব করিমের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে বিধিমোতাবেক তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে খুব তাড়াতাড়ি কেন্দ্রীয় সার্কেল অফিস থেকে এ বিষয়ে আরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। সেই তদন্ত কমিটির রিপোর্টের আলোকে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহন করবেন কর্তৃপক্ষ।

(বিএস/এসপি/জুলাই ১০, ২০২৪)